তিন বছর আগের পারফরমান্সে ফিরে যেতে মরিয়া সানরাইজারস হায়দ্রাবাদ

হায়দ্রাবাদের এই ফ্র্যাঞ্চাইসির আইপিএল অভিযান শুরু হয়েছিল ২০১৩ সালে। আগে হায়দ্রাবাদের মালিকানা ছিল ডেকান ক্রনিকাল গ্রুপের হাতে। পরে কালানিধি মারানের সান টিভি নেটওয়ার্ক এই দলের  মালিকানা পায়। এখনও পর্যন্ত এদের সবচেয়ে ভালো পারফরমান্স ২০১৩র আইপিএলে প্লে-অফে খেলা। সানরাইসারস তাদের হোম ম্যাচ গুলো খেলবে হায়দ্রাবাদের রাজীব গান্ধী ন্যাশনাল স্টেডিয়ামে। গত দুই বছর যথেষ্ট শক্তিশালী দল গড়েও ৮ দলের লীগে দুবারই ৬ নম্বরে জায়গা পেয়েছিল হায়দ্রাবাদ।

গতবছরের অধিনায়ক ডেভিড ওয়ার্নারকে এবছরেও অধিনায়ক হিসেবে রাখা হয়েছে। সানরাইজারস দলের প্রধান কোচ প্রাক্তন অস্ট্রেলিয়ান অলরাউন্ডার টম মুডি। সহকারি কোচ সাইমন হেলমট। ভিভিএস লক্ষ্মণ দলে রয়েছেন মেন্টর হিসেবে। গতবছরের দলের ব্যাটিং-এ খুব বেশি রদবদল ঘটায়নি তারা। বিখ্যাত ব্যাটসম্যানদের মধ্যে এ বছর তারা ছেড়েছে কেভিন পিটারসেন আর রবি বোপারাকে। বিদেশীদের মধ্যে বোলার ডেল স্টেনকেও তারা ছেড়েছে। ডেল আইপিএল বা সীমিত ওভারের ক্রিকেটে অনেকদিনই সেভাবে কার্যকরী ভুমিকা নিতে পারেন না। তাই এই সিদ্ধান্তে ভুল কিছু নেই। ভারতীয় ক্রিকেটারদের মধ্যে সানরাইজারস ছেড়ে দিয়েছে ইশান্ত শর্মা, প্রভিন কুমার, চামা মিলিন্দ, হনুমা বিহারী, পদ্মানাভান প্রশান্ত আর লক্ষ্মীরতন শুক্লাকে।

সানরাইজারস হায়দারাবাদ দলে যে ভারতীয় খেলোয়াড়দের রেখে দিয়েছে তারা হল শিখর ধাওয়ান, আশিস রেড্ডী, কর্ণ শর্মা, নমন ওঝা, রিকি ভুই, ভুবনেশ্বর কুমার, সিদ্ধার্থ কল এবং বিপুল শর্মা। বিদেশীদের মধ্যে তারা দলে রাখল ডেভিড ওয়ার্নার,  মোজেস হেনরিকস (দুজনেই অস্ট্রেলিয়ার),ইওন মর্গান (ইংল্যান্ড), ট্রেন্ট বোল্ট আর কেন উইলিয়ামসন (দুজনেই নিউজিল্যান্ডের)কে। পারভেজ রাসুল আর কেএল রাহুলকে সানরাইজারস দিয়ে দিয়েছে রয়াল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালুরুরকে।

নিলামে এবার সানরাইজারস মূলত ভারতীয় খেলোয়াড়ই নিয়েছে। এবারের নিলামে কেনা হায়দ্রাবাদের সবচেয়ে দামী দুই খেলোয়াড় হল যুবরাজ সিং (৭ কোটি) আর আশিস নেহরা (৫.৫ কোটি)। যুবরাজকে কেনার জন্য নিলামে সানরাইজারসের সঙ্গে জোরদার লড়াই হয়েছিল মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স আর রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালুরুর। তার আগে কিংস ইলেভেন পাঞ্জাব আর গুজরাত লায়ন্সের সঙ্গে লড়াই করে তারা ছিনিয়ে নিয়েছিল আশিস নেহরাকে। এছাড়া আর যেসব ভারতীয় খেলোয়াড়দের এবার নিলামে সানরাইজারস কিনেছে তারা হল দিপক হুডা (৪.২ কোটি), আদিত্য তারে (১.২ কোটি), বারিন্দর স্রান (১.২ কোটি), ভিজয় শঙ্কর (৩৫ লাখ), অভিমন্যু মিঠুন (৩০ লাখ)আর তিরুমালাসেট্টী সুমন (১০ লাখ)। যে দুই বিদেশীকে নিলামে কিনেছে সানরাইজারস হায়দ্রাবাদ তারা হল মুস্তাফিজুর রাহমান (বাংলাদেশ-১.৪ কোটি) আর বেন কাটিং (অস্ট্রেলিয়া-৫০ লাখ)।

sunrisers-hyderabad-team-squad-ipl-t20-2016-srh
photo source: iplt20cric.com

এই দলের বড় শক্তি হল এমন কিছু খেলোয়াড় যারা ব্যাট বা বলের সাথে অন্য কাজটাও প্রয়োজনে চালিয়ে নিতে পারেন।  দলে এইধরণের যেসব ক্রিকেটাররা আছে তারা হল আশিস রেড্ডি, যুবরাজ সিং, মোজেস হেনরিকস, ভুবনেশ্বর কুমার, কর্ণ শর্মা, বিপুল শর্মা, বেন কাটিং, কেন উইলিয়ামসন, তিরুমালাসেট্টি সুমন, দিপক হুডা, ভিজয় শঙ্কর। ধাওয়ান, যুবরাজ সিং, ওয়ার্নার, উইলিয়ামসন, মর্গান, হেনরিকস, কাটিং সমৃদ্ধ ব্যাটিং আর বোল্ট, নেহরা, ভুবনেশ্বর কুমার, মুস্তাফিজুর রাহমান, স্রান, মিঠুন, সিদ্ধার্থ কল, আশিস রেড্ডিদের পেস বোলিং ওয়ারনারকে যথেষ্ট ভরসা জোগাবে সে নিয়ে সন্দেহ নেই। গত কয়েক মাসে সীমিত ওভারের ক্রিকেটে বিশেষ করে এশিয়া কাপ আর আন্তর্জাতিক টি-২০ তে নেহরার পারফরমান্স আইপিএল শুরুর আগে সানরাইজারসের সমর্থকদের নিঃসন্দেহে বেশ স্বস্তিতে রাখবে। সদ্য সমাপ্ত বিগ ব্যাশে হেনরিকস আর বেন কাটিং ব্যাটিং-এ স্বল্প সুযোগে খুব ভালো পারফরমান্স দেখিয়েছে।

তবে সানরাইসারসের স্পিন বোলিং কিছুটা হলেও দুর্বল জায়গায় আছে। দলের প্রধান স্পিনার কর্ণ শর্মার খুব একটা আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের অভিজ্ঞতা নেই ,যদিও ঘরোয়া ক্রিকেট আর আইপিএলে অনেকদিন হল খেলছে সে। আর সেইদিক দিয়ে দেখতে গেলে ঘরোয়া ক্রিকেটের অন্যতম সফল স্পিনার অলরাউন্ডার পারভেজ রাসুলকে ছেড়ে দিয়ে খুব একটা ভালো কাজ করেনি তারা। তাই বাধ্য হয়ে যুবরাজ, উইলিয়ামসন, বিপুল শর্মা, হুডা, সুমনদের ওপর ওয়ার্নার ভরসা করবেন স্পিন সহায়ক পিচে কয়েক ওভার করে দেওয়ার জন্য। বোলিং কোচ হিসেবে মুত্থিয়া মুরালিথারান স্পিনারদের আরও পোক্ত করে তুলবেন আশা রাখা যায়। ভুবনেশ্বর কুমার চোটের জন্য অনেকদিন খেলেন নি। তার ওপর একটা লম্বা সময় ধরে তার বিখ্যাত সুইং বোলিং এর কার্যকারিতা অনেকটা কমে গেছে দেখা যাচ্ছে। এটা মুডি-ওয়ার্নার দের কাছে একটা চিন্তার বিষয় হবে অবশ্যই। নেহরার মত চোটপ্রবণ খেলোয়াড়ের ফিটনেসের দিকে সানরাইজারস নিশ্চয়ই আলাদা নজর রাখবে। বিশ্ব টি-২০ তে অস্ট্রেলিয়ার সাথে খেলায় পায়ের পেশিতে টান লেগে যুবরাজ বেরিয়ে আসেন। তারপর টুর্নামেন্টেরই বাইরে চলে যান। আপাতত যা খবর তাতে প্রথম দু সপ্তাহের জন্য লিগের বাইরে যুবরাজ। দলের দুই উইকেটকিপার নমন ওঝা এবং আদিত্য তারে এবারের ঘরোয়া ক্রিকেটে ভীষণ ভালো পারফরমান্স দেখিয়েছেন। যদিও নমন গতবারের আইপিএলে আশানুরুপ ব্যাটিং করতে পারেনি। আর সেটাই কারণ ঘরোয়া ক্রিকেটে মুম্বাই এর অধিনায়ক এবং মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স এর প্রাক্তন উইকেটকীপার ব্যাটসম্যান তারে কে দলে নেওয়ার। সিদ্ধার্থ কল, বিপুল শর্মা, কর্ণ শর্মা, দিপক হুডা এবার ভারতীয় ঘরোয়া ক্রিকেটের বিভিন্ন ফরম্যাটে খুব ভালো পারফরমান্স দেখিয়েছে।

২০১৩, আর ২০১৪, এই আইপিএল দুটোতে সানরাইসারসের অনেক অধিনায়ক পরিবর্তন হয়।এবার যে সেটা হচ্ছে না এটা একটা ভালো দিক। দলের এত পেস বোলার দের মধ্যে প্রথম এগারোয় কাকে বেছে নেয় ওয়ার্নার, মুডিরা সেটা লক্ষ্য করার মত বিষয় হবে। অভিজ্ঞ নেহরাকে দলের বাইরে রাখা যাবে না। ভুবনেশ্বর, বোল্টদের উপেক্ষা করা মুশকিল। আবার স্রান, মুস্তাফিজুরদের নিলামেএত পয়সা দিয়ে কিনে ডাগ আউটে বসিয়ে রাখতে গেলে বেশ কবার ভাবতে হবে কোচ, অধিনায়কদের। গত কয়েকটা আইপিএলে দেখা গেছে যে সানরাইজারস ভীষণ ভাবে ওপেনিং জুড়ির পারফরমান্সের ওপর নির্ভরশীল। ওপেনিং জুড়ি কোন ম্যাচে ব্যর্থ হলে মিডল অর্ডারে যুবরাজকে এবার যথেষ্ট দায়িত্ব নিতে হবে। গত দুই আইপিএলে দাগ কাটতে ব্যর্থ হওয়া সানরাইজারস হায়দ্রাবাদকে এবার মরিয়া হতে হবে প্রথম চারে থেকে প্লে-অফে খেলার জন্য। দেখা যাক তারা তাদের প্রথম আইপিএলের পারফর্মেন্স এবার দেখাতে পারে নাকি গত দুবারের পুনরাবৃত্তি হয়।

~ অর্ঘ্য লাহিড়ী এবং শ্রীতমা পাণ্ডা

ছবি সৌজন্যেঃ ambwallpapers.com

Advertisements

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s