“গো দিল্লি গো”

অভয় জৈন থেকে কৈলাস খের, খেলার দিনে ফিরোজ শাহ কোটলা স্টেডিয়াম গমগম করে তাঁদের গাওয়া থিম সং গুলোতে। ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসডর হিসেবে প্রথমে ছিলেন প্রখ্যাত বলিউড সুপারস্টার অক্ষয় কুমার, পরবর্তী কালে সেই পদে নিয়োগ করা হয় স্যর ভিভিয়ান রিচার্ডসকে। প্রচারের বারুদে ঠাসা রাজধানী শহরের আইপিএল দল দিল্লি ডেয়ারডেভিলস। ক্রিকেটকে ছড়িয়ে দেওয়ার জন্য রায়পুরের নবনির্মিত মাঠটিকেও তারা ব্যবহার করে ঘরের মাঠ হিসেবে। এত কিছুর মাঝেও শেষ তিন বছর তাদের পারফরমেন্স কিন্তু খুবই সাদামাটা। এই তিন বছরে ৪৪ টা ম্যাচ খেলে তারা জিতেছে মাত্র ১০ টি তে। আইপিএলের প্রথম দুটি সংস্করণের সেমিফাইনালিস্টরা শেষ বার প্লে-অফ খেলেছে চার বছর আগে। দলটির মালিক জিএমআর স্পোর্টস গ্রুপ, ক্রিকেটের জন্য তাদের ঐকান্তিক প্রচেষ্টার ফসল এই দলটি। তারা দলের নতুন লোগো নির্বাচিত করেছেন ‘Flying Kites’, যা কিনা শহরটির প্রানবন্ত উচ্ছলতাকে প্রতিফলিত করে।

বিগত কিছু বছরের বেশ খারাপ পারফরমেন্সের জন্য কর্মকর্তারা আমূল পরিবর্তন করেছেন এবারের দলে। এবারের নিলামে নতুন কিছু মুখ তুলে এনেছেন। পরামর্শদাতা হিসেবে নিয়োগ করেছেন প্রাক্তন ভারতীয় ‘আইকন’ ক্রিকেটার রাহুল দ্রাবিড়কে। কোচিং-এর দায়ভার রয়েছে প্যাডি আপটন, প্রবীণ আমরে, শেখর, শ্রীধরন শ্রীরামদের উপর। নতুন অধিনায়ক নির্বাচিত হয়েছেন জাহির খান, দায়িত্ব হাল্কা হয়েছে দক্ষিণ আফ্রিকান জেপি দুমিনির উপর থেকে।

প্রথমে আসি এবারের নিলাম প্রসঙ্গে। খুব বেশী বড় নামের পিছনে না দৌড়ে টি-২০ র উপযোগী বেশ কিছু ক্রিকেটারকে দলে অন্তর্ভুক্ত করেছেন। দক্ষিণ আফ্রিকার বোলার অলরাউণ্ডার ক্রিস মরিস কে চমকপ্রদ ১ মিলিয়ন ডলারে পাকা করেছেন (শোনা যায় এরপর থেকে নাকি মরিসও আন্তর্জাতিক ম্যাচ গুলোতে অতিমানবীয় প্রচেষ্টা করছেন!)। তবে আশ্চর্যজনক ভাবে পবন নেগির পিছনে ছুটে ১.৩ মিলিয়ন ডলারে তাকে তুলে নিয়েছেন দলের কর্মকর্তারা, এতদিন পর্যন্ত আইপিএলে মোটামুটি ভালো খেলা নেগিকে নিয়ে তাদের ভিন্ন পরিকল্পনা থাকতেই পারে এবারে। এছাড়াও দলে নতুন অন্তর্ভুক্তিরা হলেন, করুন নায়ার, অখিল হেরওয়াদকর, সঞ্জু স্যামসন, পবন সুয়াল, চামা মিলিন্দ, এছাড়াও এবারের যুব বিশ্বকাপে ভালো খেলা খালিল আহমেদ, রিষভ পন্থ, মহীপাল লমরোর। হাজারীবাগের প্রত্যুষ সিং-এর নির্বাচন ও তার প্রথম একাদশে খেলার সম্ভাবনা নিয়ে অবশ্য প্রশ্নচিহ্ন রয়েই যায়। বিদেশি দের মধ্যে নতুনরা হলেন ইংল্যান্ডের উইকেটরক্ষক স্যাম বিলিংস এবং সদ্য সমাপ্ত টি-২০ বিশ্বকাপ ফাইনালের ইডেন মাতানো কার্লোস ব্রাথওয়েট। কার্লোসের ঐ চোখধাঁধানো ইনিংসের পর অনেকেই মনে করছেন যে সে এই দিল্লী দলের জন্য এক্স-ফ্যাক্টর হয়ে উঠতে পারে! এছাড়াও যাদের দিল্লি ধরে রাখল তারা হলেন, ময়াঙ্ক আগরওয়াল, শ্রেয়াস আইয়ার, ইমরান তাহির, অমিত মিশ্র, জয়ন্ত যাদব, নাথান কুলটার-নাইল, মহঃ শামী, শাহবাজ নাদিম এবং এই মুহূর্তে দুর্দান্ত ফর্মে থাকা কুইনটন ডি’কক।

dd-delhi-daredevils-team-squad-players-list-for-vivo-ipl-2016-jersey-logo
photo source: vivoipl2016schedule.com

কেমন হতে পারে ডেয়ারডেভিলসদের সম্ভাব্য প্রথম একাদশ। ব্যাট হাতে ইনিংস সূচনা করার দায়িত্ব অবশ্যই কুইনটন এবং শ্রেয়াসের উপর। এরা দ্রুত স্কোরটা বাড়িয়ে দিলে সুবিধা হয়ে যাবে তিন নম্বরে ব্যাট করতে আসা ময়াঙ্কের। জে পি যদি ম্যাচ ফিট থাকেন তবে অবশ্যই তিনি চার নম্বরের প্রথম পছন্দ। এরপর একে একে হয়তো করুন, সঞ্জু, নেগি রিষভের মধ্যে যে কোন তিন জন। অমিত মিশ্র এবং ইমরান তাহিরের সাথে কোটলার অধুনা স্লো উইকেটে সঙ্গ দেবেন শাহবাজ নাদিম, নাদিমের প্রথম দলে ঠাঁই পাওয়ার জন্যে অবশ্য লড়াই থাকবে বাকিদের সাথে। দুজন পেসার দলনায়ক জাহির এবং শামী। তবে পরিস্থিতি বিচারে তাহিরের স্বদেশীয় মরিসের খেলারও সম্ভবনা থেকেই যায়। আর একান্তই যদি জে পি চোট না সারিয়ে উঠতে পারেন তবে চতুর্থ বিদেশি হিসেবে তার জায়গায় কে খেলেন সেটি জাহির কে চিন্তায় রাখবে। অনভিজ্ঞ রিজার্ভ বেঞ্চের বদলে নাথান কুলটার-নাইলের বোলিং যথেষ্ট প্রয়োজনীয় হবে বলেই ধারনা।

অনভিজ্ঞ দল, সঙ্গে বিগত বছরে ভালো করতে না পারায় এবারের প্রত্যাশার চাপ এবং রাহুল দ্রাবিড়ের মেণ্টারশিপের অধীনে এক গাদা তরুন প্রজন্মের ক্রিকেটাররা তাদের দলবদ্ধ প্রয়াসে দলটিকে কতদুর নিয়ে যেতে পারে- আমাদের নজর থাকবে সেইদিকে, এই প্রতিশ্রুতিমান দলটির উপর।

~ অনিরুদ্ধ দাস

ছবি সৌজন্যেঃ criccoverage.com

Advertisements

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s