ঘুরে দাঁড়ানোর লড়াই কিংস ইলেভেন পাঞ্জাবের

এখনো পর্যন্ত সব কটা আইপিএল খেলে ফেলা পাঞ্জাব কিন্স ইলেভেন এর ভাগ্যে একবারও ট্রফি জোটেনি। বরং গত দুটো আইপিএলে কিংস ইলেভেন এর পারফরমেন্সে আছে অদ্ভুত বৈপরীত্য। ২০১৪য় তারা রান্নার-আপ হয়েছিল। আর ২০১৫য় আট দলের লিগে ছিল সবচেয়ে নিচে। কিন্স ইলেভেন এবার তাদের ঘরের ম্যাচগুলো খেলবে মোহালি আর নাগপুরে। পাঞ্জাব কিংস ইলেভেন দলটা মূলত কেপিএইচ ড্রিমস ক্রিকেট প্রাইভেট লিমিটেডের, যে কোম্পানিতে মহিত বরমন, নেস ওয়াদিয়া, প্রীতি জিন্টা প্রমুখেরা যুক্ত। প্রীতি জিন্টাদের আইপিএল দলে কিছু বদল ঘটেছে এইবার। গতবারের অধিনায়ক জর্জ বেইলিকে ছেড়ে দিয়ে পাঞ্জাব অধিনায়ক করেছে শেষ কবছর সুনামের সাথে পাঞ্জাবের হয়ে আইপিএল খেলা দক্ষিন আফ্রিকার ব্যাটসম্যান ডেভিড মিলারকে। ছেড়ে দিয়েছে দলের সবচেয়ে বিখ্যাত ভারতীয় ক্রিকেটার বীরেন্দ্র সেহওয়াগকেও। সেহওয়াগ এবার দলের মেন্টরের দায়িত্ব সামলাবেন।

সেহওয়াগ ছাড়া আরও যে চার জন ভারতীয়কে পাঞ্জাব ছেড়ে দিয়েছে তারা হল শিবম শর্মা, যোগেশ গোয়ালকর, করনভীর সিং এবং পরভিন্দর আওয়ানা। বেইলির সঙ্গে আরও দুজন বিদেশিকেও পাঞ্জাব বিদায় জানিয়েছে। তারা হল থিসারা পেরেইরা(শ্রীলঙ্কা) আর বেইরান হেনড্রিকস(দক্ষিন আফ্রিকা)। দলে রেখে দিয়েছে মুরালি বিজয়, মনন্‌ ভোরা, ঋদ্ধিমান সাহা, গুরকিরাত সিং, অনুরিত সিং, সন্দীপ শর্মা, অকশর প্যাটেল, নিখিল নায়েক, রিশি ধাওয়ান, শারদুল ঠাকুর (সবাই ভারতীয়), মিচেল জনসন, শন মার্শ, গ্লেন মাক্সওয়েল (সবাই অস্ট্রেলিয়ার) আর ডেভিড মিলার (দক্ষিন আফ্রিকা)কে।

KXIP-Team-Squad-2016
photo source: iplauction2016.com

এ বছরের আইপিএল নিলামে মোট ৮ জন কে কিনেছে পাঞ্জাব। এদের মধ্যে সবচেয়ে বেশি দামে কেনা খেলোয়াড় হলেন মোহিত শর্মা।কলকাতা নাইট রাইডার্স আর সানরাইজার্স হায়দরাবাদ এর সঙ্গে লড়ে, পাঞ্জাব ৬.৫ কোটি টাকায় মোহিতকে কিনেছে। এর পর সবচেয়ে দামি খেলোয়াড় হলেন দক্ষিন আফ্রিকার বোলার কাইল অ্যাবট যাকে এই নিলামে কিংস ইলেভেন কিনেছে ২.১ কোটি টাকায়। নিলামে কেনা আরও ২ জন বিদেশি হল মারকাস স্টইনিস (অস্ট্রেলিয়া-৫৫ লাখ) এবং ফারহান বেহারদিন (দক্ষিন আফ্রিকা-৩০ লাখ)। মূলত ভারতের ঘরোয়া ক্রিকেটে খেলে এমন ৪ জনকে নিলামে কিনেছে পাঞ্জাব – কে সি কারিয়াপ্পা (৮০ লাখ), স্বপ্নিল সিং, আরমান জাফর, প্রদীপ সাহু (প্রত্ত্যেকের মুল্য ১০ লাখ)।

এই কিংস ইলেভেন এর পেস বোলিং যথেষ্ট শক্তিশালী। মিচেল জনসন নভেম্বরে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে অবসর নিয়েছেন। এই বছরের শুরুতে অস্ট্রেলিয়ার টি-২০ টুর্নামেন্ট বিগ ব্যাশও খেলেননি। মাঠে নামার জন্য মুখিয়ে আছেন মিচেল। সঙ্গে আছেন কাইল অ্যাবট যিনি শেষের দিকের ওভারগুলোয় বিশেষ কার্যকরী হতে পারেন। গত কয় বছরে আইপিএলে খুব ভালো পারফর্ম করেছে কিন্স ইলেভেন এর দুই ভারতীয় পেস বলার অনুরিত সিং আর সন্দীপ শর্মা। মোহিত শর্মা চেন্নাই সুপার কিংস এর খুব সফল বোলার ছিল। ২০১৪ আইপিএলের সর্বাধিক উইকেট এর মালিক মোহিত এর ওপর পাঞ্জাব অনেক আস্থা রেখেছে। স্টইনিস এবার বিগ ব্যাশ-এ যথেস্ট ভালো বোলিং করেছেন। আর আছেন দক্ষিন আফ্রিকার বেহারদিন । ঋষি ধাওয়ানও প্রয়োজন এর সময় উইকেট তুলতে সক্ষম। ঘরোয়া ক্রিকেটের আরো একজন সফল পেস বোলার শার্দুল ঠাকুরও আছেন পাঞ্জাবে। পাঞ্জাবের আর একটা শক্তিশালি জায়গা হল তাদের ব্যাটিং। ২০১৪-য় সেহ্বাগ, মিলার, মাক্সওয়েল, ঋদ্ধির ব্যাটিং পারফর্মেন্স তাদের ফাইনাল অবধি যাওয়ার অন্যতম কারন। টপ অর্ডারে শন মার্শ, স্টইনিস, মুরলী বিজয়, মনন্‌ ভোরা আর মিডল অর্ডারে ডেভিড মিলার, গ্লেন ম্যাক্সওয়েল, বেহারদিনদের উপস্থিতির কারনে পাঞ্জাবের ব্যাটিং কাগজে-কলমে যথেষ্ট শক্তিশালি। নিচের দিকে মিচেল জনসন, ঋষি ধাওয়ান, অকশর প্যাটেলদের ব্যাট কিংস ইলেভেন এর বড় ভরসার জায়গা। উইকেটরক্ষক ঋদ্ধিমান টপ অর্ডার বা মিডল অর্ডার, দু জায়গাতেই ভালো ব্যাটিং-এ সক্ষম সেটা একাধিকবার প্রমান করেছেন। অনুর্ধ উনিশ ক্রিকেটের পারফরমেন্সের এর ভিত্তিতে কিংস ইলেভেন দলে আসা আরমান জাফরও সুযোগ পেলে এই আইপিএল দলের মিডল অর্ডারে ভালো কাজে আসবে আশা করা যায়। মেন্টর হিসেবে সেহওয়াগের উপস্থিতি ব্যাটসম্যানদের নিশ্চয়ই সাহায্য করবে। এই দলে মুরলী বিজয় আর অস্ট্রেলিয়া, দক্ষিন আফ্রিকার ব্যাটসম্যানরা পেস বলের বিরুদ্ধে যথেষ্ট সাবলীল। তাই এই ব্যাটিং আর পেস বোলিং এর জন্য পেস সহায়ক উইকেটে কিংস ইলেভেনকে সহজে কাবু করা যাবে না।

কিন্তু পাঞ্জাবের সবচেয়ে বড় মাথা ব্যথার কারন হতে পারে স্পিন বোলিং। দলে অভিজ্ঞ স্পিনারের ভীষণই অভাব। স্পিনে বড় ভরসা বলতে সেই অকশর প্যাটেল যার দক্ষতা থাকলেও অভিজ্ঞতা কিন্তু খুব বেশি নেই। অকশরের সাথে ঘরোয়া ক্রিকেটের স্বপ্নিল, কারিয়াপ্পা অথবা ম্যাক্সওয়েল, মুরলী বিজয়, গুরকিরাতদের মত অনিয়মিত স্পিনারদের ওপরেই ভরসা রাখতে হবে পাঞ্জাবকে। এ ছাড়া গত বছর পাঞ্জাব কিন্স ইলেভেনের খুব খারাপ পারফরমেন্সের একটা বড় কারন ছিল মিলার ছাড়া আর বাকি দলের ব্যাটিং ব্যর্থতা। এছাড়া অভিজ্ঞ মিচেলও কয়েকটা ম্যাচে প্রয়োজনের সময় ভালো বোলিং করতে পারেননি। তাই যে উইকেট পেস সহায়ক নয় সেখানে দল অকশরের ওপর ভীষণ ভাবে নির্ভরশীল থাকবে।

নতুন অধিনায়ক মিলারের জন্য এবারের আইপিএল বিশাল বড় চ্যালেঞ্জ। ইদানিং তার ব্যাটিং-ও খুব একটা আশানুরুপ হচ্ছে না। আইপিএলের বিভিন্ন উইকেটে তার অধিনায়কত্ব কতটা সফল হয় সেটাই দেখার। ঘরোয়া ক্রিকেটে অনেকদিন খেলা এবং আইপিএলেও বিভিন্ন দলে খেলা দুই ভারতীয় ক্রিকেটার ঋদ্ধিমান আর বিজয়ের মতামত ভীষণ উপযোগী হতে পারে মিলারের। কিংস ইলেভেনের অন্যতম সফল বোলার সন্দীপ শর্মাকে নিয়ে কিংস ইলেভেন একটু চিন্তায় থাকলে অবাক হওয়ার কিছু থাকবে না। ২০১৫-র আগস্টের পর সন্দীপ কোন প্রতিযোগিতামুলক ক্রিকেট খেলেনি। বছর কয়েক ধরেই সন্দীপ মাঝে মাঝেই চোটের জন্য প্রতিযোগিতামূলক ক্রিকেট থেকে দূরে থেকেছে। তবে ভারতীয় দলে নিয়মিত না খেলেও কয়েক মাস আগে শেষ হওয়া ভারতের ঘরোয়া ক্রিকেটের বিভিন্ন ফরম্যাটে ঋষি ধাওয়ান, অনুরিত সিং, গুরকিরাত সিং, স্বপ্নিল সিং, কারিয়াপ্পা, শার্দুল ঠাকুর, অকশর প্যাটেলরা ভালো পারফর্ম করেছে। কিংস ইলেভেন এদের নিয়ে স্বপ্ন দেখতেই পারে। ২০১৬-র বিগ ব্যাশে শন মার্শ, ম্যাক্সওয়েল, স্টইনিসরা মোটামুটি সফল। পাঞ্জাব ম্যানেজমেন্ট একটা খুব ভালো কাজ করেছে। ২০১৫-র ভীষণ খারাপ পারফরমান্স এর পরও দলে আমূল পরিবর্তন আনেনি। তাই প্রথম কয়েকটা ম্যাচ খুব গুরুত্বপূর্ণ হতে চলেছে প্রীতি জিন্টার দলের জন্য। সেগুলোয় পারফরমেন্স খারাপ হলে গত বছরের ব্যর্থতার ভুত যে আবার ঘাড়ে চেপে বসবে সে নিয়ে কোন সন্দেহ নেই। গত বছরের ব্যর্থতার পর তাই বাঙ্গার-মিলার দের সামনে কঠিন পরীক্ষা। এবার দেখার যে তারা দেওয়াল এ পিঠ ঠেকে যাওয়া অবস্থা থেকে ঘুরে দাঁড়াতে পারবে কি?

~ অর্ঘ্য লাহিড়ী এবং শ্রীতমা পাণ্ডা

ছবি সৌজন্যেঃ ipl9t20.com

Advertisements

2 thoughts on “ঘুরে দাঁড়ানোর লড়াই কিংস ইলেভেন পাঞ্জাবের

  1. ekta point mone holo alochona kora jete parto..je how mohit sharma will fare under someone except dhoni as captain.
    ar critical point hisebe arekta jinis..for all ipl teams..ekta chotto tabular form e last sob season er performance. kothay lekha ache thik I..but table will turn more eyes.

    Like

    1. Accha. Jehetu ei format e ei table ta bhaba hoyni tai ekta kaaj korbo noy. Tournament shurur mukhe sob team er eksonge table bar korar chesta korbo. Mohit er point ta khub interesting.

      Like

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s